আশাশুনিতে খোলপেটুয়া নদীর বাঁধ ভেঙে ৪ শতাধিক পরিবার পানিবন্দী, বাজারঘাট প্লাবিত

শেখ বাদশা, আশাশুনি: সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার দয়ারঘাট এলাকায় খোলপেটুয়া নদীর রিংবাঁধ ভেঙে বিলীন হয়ে গেছে। এতে দয়ারঘাট ও আশাশুনি দক্ষিণপাড়াসহ আশপাশের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে চার শতাধিক পরিবার, দোকানপাট, বাজারঘাট।

মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) দুপুরে প্রচন্ড জোয়ারের তোড়ে খোলপেটুয়া নদীর দয়ারঘাটের দুটি ও আশাশুনির তিনটি পয়েন্টে ভেঙে রিংবাধ বিলীন হয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানে আশাশুনি সদর ইউনিয়নের ১০টি পয়েন্টে খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে গোটা ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছিল। তখন স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে আটটি পয়েন্টে বেড়িবাঁধ সংস্কার করা হলেও দুটি পয়েন্টে বেড়িবাঁধ সংস্কার করা সম্ভব হয়নি। ওই দুটি পয়েন্টে রিং বাঁধ দিয়ে কোন মতে পানি আটকানো হয়। সোমবার রিং বাঁধে ভাঙন ধরলেও তা মেরাতম করা হয়। কিন্তু মঙ্গলবার দুপুরের জোয়ারে আর ঠেকানো যায়নি। দয়ারঘাটের দুটি ও আশাশুনির তিনটি পয়েন্টে ভেঙে রিংবাধ বিলীন হয়ে গেছে। এখনো এলাকায় পানি ঢুকছে। বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করেছে।

আশাশুনি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান স ম সেলিম রেজা মিলন জানান, দয়ারঘাট ও আশাশুনিতে রিংবাধ ভেঙে শত শত পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। সন্ধ্যার আগে সংস্কার করা সম্ভব না হলে আশাশুনি সদর, শ্রীউলা, শোভনালী ও চাম্পাফুল ইউনিয়নও প্লাবিত হয়ে যাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও রাব্বী হাসান জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ভাঙনকবলিত বাঁধের বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!