মাসুদ রানার সুচিকিৎসার জন্য অসহায় বাবার সাহায্যের আবেদন

ডেস্ক রিপোর্ট: সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার ভাতশালার দিনমজুর ও ভূমিহীন মজনু ঢালী এবং গৃহিনী রিনা পারভীন দম্পতির বড় ছেলে মাসুদ রানার (৯) সুচিকিৎসার জন্য সাহায্যের আবেদন জানানো হয়েছে।

টাউন শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণীর ছাত্র মাসুদ রানা ডান পায়ের হাড়ে ইনফেকশন নিয়ে বর্তমানে সাতক্ষীরা শহরের সংগ্রাম হাসপাতালে ডা. প্রবীর কুমারের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ইতোমধ্যে তার পায়ে দু’দফায় অস্ত্রপচার সম্পন্ন হয়েছে।

যদিও অর্থাভাবে এখন তার সুচিকিৎসা করাতে পারছে না অসহায় বাবা মজনু ঢালী।

মজনু ঢালী জানান, তিনি দুই ছেলে মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে ভাতশালায় সরকারি খাস জিমিতে বসবাস করেন। আড়াই মাস আগে তার বড় ছেলে মাসুদ রানার প্রতিনিয়ত জ্বর আসতো। যা ওষুধ খেলে কমে যেত । এর একমাস পরেই সে ডান পায়ে জ্বালা যন্ত্রণা অনুভব করতে থাকে। প্রথমে ধরা না পড়লেও এক পর্যায়ে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা জানান তার পায়ের হাড়ে ইনফেকশন হয়েছে। ছেলেকে সুস্থ করে তুলতে প্রায় আড়াই লাখ টাকা ঋণ দেনা করে সাতক্ষীরা শহরের সংগ্রাম হাসপাতালে ডা. প্রবীর কুমারের তত্ত্বাবধানে তার পায়ের হাড়ে অস্ত্রপচার করানো হয়। এরপর প্রথম দেড় মাস ভালই ছিল। নিয়মিত পরীক্ষা করেও ভাল ফল পাওয়া যেত। কিন্তু দেড় মাস পরে পরীক্ষার রিপোর্টে আবারও সমস্যা ধরা পড়ে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সম্প্রতি তার পায়ে আবারও অস্ত্রপচার করা হয়েছে। সে এখনও সংগ্রাম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। কিন্তু এখন তাকে ওষুধ খাওয়ানোর মতো টাকাও নেই। আর হাসপাতালের বিল ও দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রপচারের বিলও বাকী। ওষুধের দোকান থেকে বাকী করে ওষুধ নিয়ে তাকে খাওয়াচ্ছি। কিন্তু কোন কূল কিনারা পাচ্ছি না।

মজনু ঢালী তার ছেলের সুচিকিৎসার জন্য সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। সাহায্যের জন্য তার ০১৮৩০১৭৬৮০১ নাম্বারে যোগযোগ করা যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *