মুন্সীগঞ্জ-নাভারণ রেললাইন প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবিতে স্মারকলিপি পেশ

ডেস্ক রিপোর্ট: দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলকে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সুবিধার আওতায় আনতে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সাতক্ষীরার মুন্সীগঞ্জ থেকে যশোরের নাভারণ পর্যন্ত রেললাইন প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দাবিতে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) সাতক্ষীরার বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক অরবিন্দ মৃধাসহ বেশ কয়েকজন সংস্কৃতি কর্মী ২০২২-২৩ অর্থবছরে রেললাইন স্থাপন প্রকল্পে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ দেওয়ার দাবিতে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই স্মারকলিপি পেশ করেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ২০০৯ সালে প্রলংকারী ঘূর্ণিঝড় আইলার পর সাতক্ষীরা উপকূলের মানুষের সাথে সাক্ষাৎ করতে ২০১০ এর ২৩ জুলাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নকিপুর হাইস্কুল মাঠে এক বিশাল জনসভায় ভাষণ দেন।

এসময় তিনি আইলা উপদ্রুত মানুষের চাহিদা পূরণে ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি শ্যামনগরের মুন্সিগঞ্জ থেকে যশোরের নাভারণ পর্যন্ত রেললাইন স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর থেকে প্রধানমন্ত্রীর এই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। ৬টি স্টেশন এবং ২টি রেলসেতু সমৃদ্ধ রেললাইন স্থাপনে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় ১৬৬২ কোটি টাকা। যা ভিজিবিলিটি স্ট্যাডিও সম্পন্ন হয়। এরপর থেকে প্রকল্পটি ফাইলবন্দি হয়ে আছে। রেললাইন স্থাপনে কোন অগ্রগতি লক্ষ করা যায়নি।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, রেললাইন স্থাপিত হলে সুন্দরবনাঞ্চলের মৎস্য ও অন্যান্য আহরণ ও তা পরিবহনে ব্যাপক সুবিধা পাওয়া যাবে। এছাড়া আমদানি রফতানির সিংহদ্বার সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ ভারতের দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা বাণিজ্য আরও জোরদার করা সম্ভব হবে।

একই সাথে নাভারণ থেকে সুন্দরবনের মুন্সিগঞ্জ পর্যন্ত একটিমাত্র ব্যস্ত সড়ক, যার ওপর দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করছে। যানবাহনের জট কমাতে এবং যাত্রী সাধারণের যাতায়াতের সুবিধার্থে মুন্সিগঞ্জ-নাভারণ রেল প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে।

প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রেরিত স্মারকলিপিটির অনুলিপি সড়ক ও সেতুমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, পরিকল্পনামন্ত্রী ও রেলমন্ত্রী বরাবরও পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *