সোমবার , ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. English
  2. অনুষ্ঠানসমূহ
  3. অর্থ বাণিজ্য
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম
  6. ক্যারিয়ার
  7. খুলনা
  8. খেলা
  9. চট্টগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. ঢাকা
  12. তথ্যপ্রযুক্তি
  13. পরিবেশ
  14. ফটো গ্যালারি
  15. বরিশাল

পাইকগাছায় গৃহবধূর চোখ-মুখে সুপার গ্লু লাগিয়ে পাশবিক নির্যাতন, অতঃপর ডাকাতি!

প্রতিবেদক
the editors
ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪ ৫:১৫ অপরাহ্ণ

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: খুলনার পাইকগাছায় চোখে-মুখে সুপার গ্লু লাগিয়ে বেঁধে রেখে এক গৃহবধূকে (৪৫) কে পাশবিক নির্যাতন, অতঃপর ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

রোববার গভীর রাতে উপজেলার রাড়ুলীতে অজ্ঞাত ৪/৫জন ডাকাত এ ঘটনা ঘটায়।

সোমবার ভোররাতেই পরিবারের সদস্যরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেলে (ওসিসি) ভর্তি করেছে।

পাইকগাছার রাড়ুলী রাড়ুলী ইউনিয়নের ষষ্ঠীতলা বাজার সংলগ্ন বোরহানপুর গ্রামে রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, রোববার রাতে ডাকাতেরা মই দিয়ে ছাদে উঠে সিড়ির দরজা শাবল দিয়ে ভেঙে ওই গৃহবধূর বেডরুমে ঢোকেন। ওই গৃহবধূ বাড়িতে একা ছিলেন। এসময় তার হাত পা বেঁধে চোখে সুপার গ্লু লাগিয়ে জোরপূর্বক পাশবিক নির্যাতন এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করে ১ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল এবং আনুমানিক ২ লাখ টাকা লুট করে পালিয়ে যায় ডাকাত দলের সদস্যরা। পরে ওই গৃহবধূর চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তার স্বামীকে খবর দেন এবং তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মুঠোফোনে ওই গৃহবধূর স্বামী বলেন, একতলা ছাদের উপরের সিড়ির ঘর খোলা ছিল। আমার স্ত্রীর চোখ ও মুখ সুপারগ্লু দিয়ে আটকে দেয় ধর্ষকরা। আমার স্ত্রী কথা বলতে পারছে না।

সহকারী পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) মোঃ সাইফুল ইসলাম ও পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ওবাইদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুর রহমান বলেন, ওই গৃহবধূকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। ধর্ষণ হয়েছেন কিনা বা সুপারগ্লু দিয়েছে কিনা এখনই বলা যাচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখ জনক। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ - জাতীয়

error: Content is protected !!